সোশ্যাল মিডিয়ায় অনেকেই দাবি করলেও এটি মায়ানমারের রোহিঙ্গাদের উপর নির্যাতনের ছবি নয়।

“সেভ বার্মা রোহিঙ্গা মুসলিম (SAVE VARMA Rohinga Muslim)” নামের ফেসবুক পেজসহ অনেকেই এই ছবিটা শেয়ার করেছেন; ক্যাপশন ছিল: “রহিংগা যুবকদের দরে এনে জবাই করে জংগলে ফেলে দিচ্ছে বৌদ্দ সন্তাসীরা সরিলে মুসলমানের রক্ত থাকলে আমাদের পেজে লাইক দিয়ে ছবিটি বেসি বেসি সেয়ার করুন।”

ছবিটা আসলে ২০১৪ সালের, ‘রেডিওএলটি১২ (RadioLT12) নামে আর্জেন্টিনার একটি রেডিও কোম্পানির ওয়েবসাইটে পয়লা প্রকাশিত হয়। ওয়েবসাইটে সেই লেখাটির নাম ছিল, “ব্রাজিলের জঙ্গল রক্ষায় আদিবাসীদের ভয়ংকর সব ছবি”। ৯ সেপ্টেম্বর প্রকাশিত এই লেখায় আরো বলা হয়:

উত্তরের মারানহাও রাজ্যের কাপোরস (Caapores) ইন্ডিয়ানদের একটা ট্রাইবের সদস্যরা বেআইনী এবং নির্বিচার কাটাকাটি থেকে তাদের গাছ রক্ষা করছে। জঙ্গলে গাছ কাটতে আসা লোককে কাপোনস সদস্যরা বেধে পিটিয়েছে এবং গাছের ট্রাক আগুনে পুড়িয়ে দিয়েছে।

ফলহা ডি সাও পাওলো পত্রিকা জানাচ্ছে, ছবিগুলো তুলেছিলেন ল্যুনে পারাচো নামে একজন ফটোজার্নালিস্ট এবং ছবিগুলিতে দেখা যাচ্ছে, অলটো তুরিয়াছু জঙ্গলে যারা বেআইনীভাবে গাছ কাটতে গিয়েছিল, স্থানীয়রা তাদের তাড়িয়ে দিচ্ছে।

রাজ্য সরকার যখন বেআইনীভাবে গাছ কাটার ব্যাপারে কোন ব্যবস্থা নেয়নি জঙ্গলের আদিবাসীরা তখন নিজেদের হাতে আইন তুলে নিয়েছে।

  • Read in English

Leave a Reply

fact-watch