ফারেজী আন্দোলন নামক একটি ফেসবুক পাতা ফেব্রুয়ারির প্রথম দিকে একটি ভিডিও প্রকাশ করে; সেখানে দেখা যায়, কট্টরপন্থীরা একটি নির্মাণাধীন মাজারের উপর আক্রমণ করে। একই ভিডিও পরে ভারতে প্রকাশ করা হয়, শিরোনাম পাল্টে। দাবি করা হয়, এটি রাজস্থানে হিন্দুদের উপর মুসলমানদের হামলার ভিডিও।

আমাদের গবেষণায়, ভিডিওটি প্রাথমিকভাবে ধর্মীয় চরমপন্থীদের মাধ্যমে প্রকাশ পায়, যারা “জিন্দা পীর”-এর নামে নির্মাণাধীন মাজার ভাঙার ঘটনাকে তারিফ করে বক্তব্য দেয়। ভিডিওটি ফেসবুক এবং ইউটিউব দুটি প্লাটফর্মেই শেয়ার করা হয়েছে। তবে এই সংঘর্ষ/ভাংচুর নিয়ে সেই সময়ের কোন সংবাদ পোর্টাল বা সংবাদপত্রে রিপোর্ট করা হয়নি, তাই আমরা স্বাধীনভাবে যাচাই করতে পারিনি যে, ভিডিওটিতে আসলে কি দেখানো হচ্ছে এবং কি দাবী করা হচ্ছে।

ইতিমধ্যে ভিডিওটি রাজস্থানের হিন্দুদের উপর মুসলমানদের হামলার একটি উদাহরণ হিসাবে প্রচারিত হচ্ছে। হিন্দীতে শিরোনাম দেওয়া হয়েছে, “হিন্দু পরিবারের উপর মোসলমানদের হামলা” এবং “রাজস্থানের হিন্দুদের বাড়িতে ঢুকে মুসলমানদের হামলা-ভাংচুর”। একই ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভিন্ন নামে প্রচারিত হচ্ছে তার একটি উদাহারণ নিচে দেওয়া হল।

ভারত থেকে অন্য আরেকটি ভিডিওকে এই ভিডিওর সাথে সম্পর্কিত হিসেবে পোস্ট করা হয়েছে। এই ভাংচুর-হামলায় আক্রান্ত মানুষ হিসাবে দাবি করা হচ্ছে সেই ভিডিও’র মানুষজনকে। কিন্তু সেটি আসলে রাজস্থানের একটি মন্দিরে দুর্ঘটনার ভিডিও (সূত্র: বুমলাইভ.ইন )।

নিচে দুটি ভিডিও নিয়ে ১১ ফেব্রুয়ারির একটি ফেসবুক পোস্ট দেওয়া হলো। হিন্দিতে ক্যাপশন তরজমা করছে ফেসবুক, “রাজস্থানে rānīpura হত্যা করা হচ্ছে । তাদের মন্দির ভেঙ্গে যাচ্ছে । শিশুরা মারা যাচ্ছে । আরো বেশি ভাই শেয়ার করুন । জয় শ্রী রাম ।”।

राजस्थान में रानीपुर में हिंदुओं को मारा जा रहा है काटा जा रहा है उनके मंदिरों को तोड़ा जा रहा है बच्चों महिलाओं को मारा जा रहा है ज्यादा से ज्यादा शेयर करें भाइयों जय श्री राम

Posted by Narenkumar Raval on Sunday, 11 February 2018

  • Read in English

Leave a Reply

fact-watch