ইউনিভার্সিটি অফ লিবারেল আর্টস বাংলাদেশ (ইউল্যাব)-এর তথ্য যাচাই বিষয়ক উদ্যোগ ফ্যাক্ট-ওয়াচ আনুষ্ঠানিকভাবে যাত্রা শুরু করেছে। আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন উপলক্ষে আজ ৫ মে সকাল এগারোটায় ইউল্যাবের ধানমন্ড‌‌‌ি ক্যাম্পাসের অডিটোরিয়ামে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

ইউল্যাবের মিডিয়া স্টাডিজ অ্যান্ড জার্নালিজম (এমএসজে) বিভাগের শিক্ষক প্রফেসর সুমন রহমানের নেতৃত্বে এবং আমেরিকান সেন্টার ঢাকার আর্থিক সহায়তায় নির্মিত ফ্যাক্ট-ওয়াচের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা ট্রিবিউনের সম্পাদক জাফর সোবহান। বিশেষ অতিথি ছিলেন ঢাকায় আমেরিকান দুতাবাসের কালচারাল অ্যাফেয়ার্স অফিসার জুলি নিকেলস। উপস্থিত ছিলেন ইউল্যাবের উপাচার্য প্রফেসর এইচ. এম. জহিরুল হক, বোর্ড অফ ট্রাস্টির বিশেষ উপদেষ্টা প্রফেসর ইমরান রহমান, মিডিয়া স্টাডিজের প্রধান প্রফেসর জুড উইলিয়াম হেনিলোসহ বিশ্ববিদ্যালয়টির বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক এবং শিক্ষার্থীরা।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের এই যুগে এসে তথ্যও যাচাইয়ের গুরুত্ব সম্পর্কে আলোচনার পাশাপাশি প্রফেসর ইমরান রহমান বলেন, “পুরো বিশ্বে মাত্র চার থেকে পাঁচটি বিশ্ববিদ্যালয় ফ্যাক্ট-চেকিংয়ের উদ্যোগ নিয়েছে। ইউল্যাব এর একটি। এটি আমাদের জন্যে গর্বের বিষয়।” প্রফেসর ইমরানের বক্তব্যের পর ফ্যাক্টওয়াচের কার্যক্রম নিয়ে নির্মিত একটি সংক্ষিপ্ত প্রামান্যচিত্র উপস্থিত সকলের সামনে উপস্থাপন করা হয়।

এরপর বক্তব্য রাখেন জুলি নিকেলস। বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্র এবং বাংলাদেশে ফ্যাক্ট-চেকিংয়ের গুরুত্ব সম্পর্কে কথা বলেন তিনি। আসন্ন নির্বাচনে ফ্যাক্ট-ওয়াচের মতন তথ্য যাচাইয়ের একটি উদ্যোগ বেশ ভালো ভূমিকা রাখবে বলে মনে করেন তিনি। বাংলা এবং ইংরেজি দুটি ভাষাতেই ফ্যাক্ট-ওয়াচ চালু করায় আমেরিকান দূতাবাসের পক্ষ থেকে ইউল্যাবকে ধন্যবাদ জানান তিনি।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ঢাকা ট্রিবিউনের সম্পাদক বর্তমানে দেশে একটি ফ্যাক্ট-চেকিং ওয়েবসাইট থাকার বিভিন্ন ইতিবাচক দিক নিয়ে কথা বলেন। বিংশ শতাব্দীর তুলনায় বর্তমানে টিভি চ্যানেল, সংবাদ পত্রিকার সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় এবং ইন্টারনেটের জনপ্রিয়তার ফলে তথ্য পাবার প্রক্রিয়াটি আগের চেয়ে অনেক সহজ হয়ে গিয়েছে এমনটা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ইন্টারনেটের কারণে তথ্য ছড়িয়ে দেবার প্রক্রিয়াটিও বেশ সহজ হয়ে গিয়েছে। সে কারণে যাচাই-বাছাই ছাড়া ভুয়া তথ্য ছড়াচ্ছেও বেশি। এমনকি অনেক সময় সংবাদপত্রগুলিও সত্য-মিথ্যা যাচাই ছাড়াই সংবাদ প্রকাশ করে ফেলছে। ফ্যাক্ট-ওয়াচ দেশের সাধারণ জনগণের কাছে বিশ্বস্ত তথ্যের একটি উৎস হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

জাফর সোবহানের বক্তব্যের পর অনুষ্ঠানে উপস্থিত অতিথিবৃন্দ এবং ফ্যাক্ট-ওয়াচ দল আনুষ্ঠানিকভাবে ফ্য‌াক্ট-ওয়‌াচ‌ের ওয়েবসাইট উদ্বোধন করে। এমএসজে বিভাগের প্রধান প্রফেসর জুড উইলিয়াম হেনিলো অতিথিদের হাতে ক্রেস্ট এবং উপহার তুলে দেন। সবশেষে উপাচার্য প্রফেসর জহিরুল হকের বক্তব্যের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি টানা হয়।

  • Read in English

Leave a Reply

fact-watch