ছবি: বিবিসি-র সৌজন্যে

 

মানুষকে ঘরের মধ্যে রাখার জন্য ভুতের সাহায্য নিচ্ছে ইন্দোনেশিয়ার একটি গ্রাম! স্থানীয় লোককাহিনিতে এরকম ধরনের ভুতের নাম পোকং ভুত। এরা খুব ভয়ানক ও খতরনাক ধরনের হয়ে থাকে। ফলে, সাদা কাফনে মোড়ানো এই ভুত মানুষকে ভয় দেখিয়ে ঘরে পাঠাতে পারবে বলে মনে করছেন এর উদ্যোক্তারা।

সম্প্রতি দেশটির জাভা আইল্যান্ডের একটি গ্রামে এই বিশেষ উদ্যোগটির খোঁজ মিলেছে। স্থানীয় পুলিশের সহযোগিতায় ছদ্মবেশী একদল স্বেচ্ছাসেবী ভূত বিভিন্ন জায়গায় ছড়িয়ে থেকে করোনা মহামারির বিরুদ্ধে এই লড়াইয়ে ভিন্নভাবে সামিল হয়েছেন। এই কৌশলের উদ্যোক্তারা মনে করেন, বেশিরভাগ মানুষের যেহেতু ভৌতিক কুসংস্কার আছে, ভুতের ভয় তাদের রাতের বেলা অন্তত ঘরের মধ্যে আটকে রাখবে। ইতোমধ্যে সামাজিক মাধ্যমে স্বেচ্ছাকর্মী ভূতদলটির কয়েকজনের ছবি প্রকাশ পেয়েছে। এদের একজন একটি স্থানীয় পত্রিকার প্রতিনিধিকে জানান, কিছু অল্পবয়সী ছেলেমেয়ে সরকারি নির্দেশ না-মেনে রাতে ঘুরাফেরা করছে; আমি তাদের ভয় দেখাই।

 

ছবি: জাকার্তা পোস্ট

স্থানীয় পত্রিকাসূত্রে জানা গেছে, এই উদ্যোগের ফলে রাতেবিরাতে বাড়ির বাইরে যাওয়া একেবারেই বন্ধ হয়ে গেছে। রয়টার্সসূত্রে অবশ্য খানিকটা ভিন্ন আভাস মিলেছে। তাদের প্রতিনিধি বলছেন, লোকজন বরং এসব ভুতদের শনাক্ত করবার জন্য বাইরে যাচ্ছেন।

 

ইন্দোনেশিয়ার স্বাস্থ্য অধিদপ্তর মঙ্গলবার ঘোষণা করেছে দেশে বর্তমান মৃতের সংখ্যা ৩৯৯ জন এবং সাড়ে চার হাজারেরও মানুষ করোনায় আক্রান্ত।

 

খবরটির বিস্তারিত জানা যাবে এখানে 

 

 

  • Read in English

Leave a Reply

fact-watch