এই বাবা ও মেয়েকে কি সত্যিই মুগদা হাসপাতালের বাইরে দেখা গিয়েছে?

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেইসবুকে প্রচারিত ফুটপাতে বসে থাকা বাবা-মেয়ের ছবিটি ঢাকার মুগদা হাসপাতালের বাইরে বলে চালানো হচ্ছে কিন্তু প্রকৃতপক্ষে এটি একটি মিশরের ছবি। “কোন হাসপাতালে স্থান হলোনা করোনা আক্রান্ত মেয়ের”- এমন আবেগঘন স্ট্যাটাসের সাথে ভুয়া ছবি লাগিয়ে ‘আর্টমিস্ত্রী’ নামক একটি ফেইসবুক পেইজ থেকে পোস্টটি করা হয় আজ।

ছবিতে ক্লিক করে ছবির উৎস দেখুন

 

গুগল রিভার্স ইমেজ সার্চের মাধ্যমে তথ্যটির সত্যতা যাচাই করা সম্ভব হয়। এই ছবিটি মূলত একজন মিশরীয় নাগরিক আহমেদ জামিল খলিল ও তার মেয়ে জুমানার, তুলেছেন ফটোগ্রাফার ফারিদ কোতব। তিনি ঈদের দিন ফেইসবুকে ছবিটি প্রকাশ করলে সেটি তীব্রতার সাথে ছড়িয়ে পড়ে সর্বত্র। আহমদ খলিল অর্থের অভাবেই রাস্তায় রাস্তায় ঘোরেন তিন বছরের মা হারা মেয়েশিশুকে নিয়ে। এমনকি কন্যা অপহরণের ঝুঁকি এড়াতে ঘুমান নজরদারি ক্যামেরা নিচে কিংবা যেখানে পুলিশ প্রহরী রয়েছে।

আল-জাজিরার একটি প্রতিবেদন থেকে জানা যায় বিপুল সংখ্যক জনসাধারনের সহযোগিতা ছাড়াও সামাজিক-সংহতি মন্ত্রী আহমদকে মাসিক ভাতা, একটি কাজের সুযোগ ও নিরাপদ বাসস্থানের ব্যবস্থা করে দেন। যদিও মাস্ক পরা মেয়েটি কি করোনায় আক্রান্ত ছিল কিনা সে বিষয়ে কোন তথ্য কোথাও প্রকাশিত হয়নি।

তথ্য সংগ্রহের উৎসগুলো আরবি ভাষায় হওয়ায় আমরা গুগল ট্রান্সলেটরের সাহায্য নেই। করোনা মহামারির সাথে কোনপ্রকার সম্পৃক্ততা না থাকায় উল্লিখিত আর্টমিস্ত্রী পেইজ বা অন্য যেকোন খানে এই অপতথ্য প্রচারিত হলে তা রিপোর্ট করবার অনুরোধ করা হলো।

এডিট করে শপিং ব্যাগ থেকে আরবি লেখা তুলে দেওয়া হয়েছে উদ্দেশ্যমূলকভাবে
আসল ছবি যেখানে ফটোগ্রাফার ও প্রতিষ্ঠানের নাম উল্লেখ করা আছে

 

 

 

 

 

 

 

 

তথ্যসূত্র

আল-জাজিরার প্রতিবেদন

এ বিষয়ে আরও পড়ুন এখানে

আপনি কি এমন কোন খবর দেখেছেন যার সত্যতা যাচাই করা প্রয়োজন?
কোন বিভ্রান্তিকর ছবি/ভিডিও পেয়েছেন?
নেটে ছড়িয়ে পড়া কোন গুজব কি চোখে পড়েছে?

এসবের সত্যতা যাচাই করতে আমাদেরকে জানান।
আমাদেরকে ইমেইল করুনঃ contact@fact-watch.org
অথবা ফেইসবুকে মেসেজ দিনঃ fb.com/search.ulab

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *