পোষা প্রাণী কি মানুষের মধ্যে কোভিড–১৯ ছড়াতে পারে?

মানুষ পোষা প্রাণীকে ভাইরাসে আক্রান্ত করছে ঠিকই, কিন্তু তারা মানুষকে করছে বলে  এখনও পর্যন্ত কোন প্রমাণ পাওয়া যায় নি। এরকম পরিস্থিতিতে পোষা প্রানীকে পরিত্যাগ করার প্রশ্নই ওঠে না, বরং পরিবারের অন্য যেকোন সদস্যের মত তাদেরকেও সংক্রমণ থেকে নিরাপদ দুরত্বে এবং পরিচ্ছন্ন রাখা আমাদের কর্তব্য।

সম্প্রতি একটি আতংক সৃষ্টি হয়েছে যে পোষা প্রাণীর মাধ্যমে কোভিড-১৯ ছড়াতে পারে। এ বিষয়ে অনলাইনে বেশ কিছু লেখা এবং ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে যাতে পোষা-প্রাণী থেকে সবাইকে ‘নিরাপদে’ থাকার জন্য সতর্ক করা হয়েছে।

করোনাভাইরাসের বিভিন্ন স্ট্রেইন বা গোত্র আছে, যেগুলোর মধ্যে কিছু কেবলমাত্র মানুষে সংক্রামিত হয় এবং কিছু হয় অন্যান্য প্রাণীতে। এসব ভাইরাস বিভিন্ন প্রজাতিতে উপস্থিত থাকলেও সব ক্ষেত্রে রোগ তৈরী করে না বা করলেও তা সংক্রমণ করে না। কোন এক প্রজাতির প্রাণী রোগের ধারক(হোস্ট) হলেও বাহক(ভেক্টর) না-ও হতে পারে। ঘটমান মহামারীর জন্য দায়ী করোনাভাইরাসটি SARS-CoV-2 হিসেবে চিন্হিত। হংকংয়ের দুটি কুকুরের ক্ষেত্রে দেখা গেছে, SARS-CoV-2 বহনকারী দুটি কুকুরের দেহে অসুস্থতার কোনও লক্ষণ নেই। পরীক্ষা করেও এমন কোনও প্রমাণ পাওয়া যায়নি যে, এরা মানুষের জন্য সংক্রমণের উত্স বা ঝুঁকিপূর্ণ হতে পারে। গার্ডিয়ানের প্রতিবেদনটি পড়ুন এখানে

চীন থেকে প্রকাশিত অতি সাম্প্রতিক একটি গবেষণাপত্রে প্রারম্ভিক তথ্য পাওয়া গেছে যে ল্যাবরেটরির পরিবেশে বেড়াল SARS-CoV-2-তে আক্রান্ত হতে পারে এবং অন্য বেড়ালের মধ্যে ছড়িয়ে দিতে পারে। কিন্তু মানুষের মধ্যে তারা রোগ ছড়াতে পারে সেরকম কোন আলামত পাওয়া যায় নি। এই তথ্যটি ভ্যাকসিন তৈরির জন্যে কাজে আসতে পারে। বিড়াল নিয়ে ভয় পাবার কোন কারণ এতে তৈরী হয় নি।


অনলাইনে দ্য টাইগার উইথ করোনা ভাইরাস শিরোনামে যে সংবাদটি ঘুরছে, সেটি নিউয়র্কের ব্রঙ্কস চিড়িয়াখানার একটি বাঘ। পরীক্ষার মাধ্যমে নিশ্চিত হয়েছে যে বাঘটি করোনাভাইরাসে সংক্রমিত। তবে ডাক্তাররা নিশ্চয়তা দিয়েছেন যে বাঘটি সম্পূর্ণ সুস্থ হয়ে যাবে। ওয়ার্ল্ড এনিমেল হেলথ অর্গানাইজেশন বলছে, কোভিড-১৯ শুধু মানুষ থেকে মানুষে সংক্রামিত হচ্ছে। অতএব পোষা প্রাণীদের বিরুদ্ধে কোনো নির্মম ব্যবস্থা গ্রহণেরও কোনও যৌক্তিকতা নেই।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছে তারা পোষা প্রানীদের সাথে ভাইরাস সংক্রমণের সম্পর্ক আছে কি না তা নিয়ে বিস্তারিত খতিয়ে দেখছে। কিন্তু এখন পর্যন্ত কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি যার ওপর নির্ভর করে বলা যায় পোষা-প্রাণী থেকে করোনাভাইরাস মানুষে সংক্রামিত হতে পারে। বরং উল্টোটিই সত্য। বিশ্বজুড়ে যে কয়েকটি  প্রাণী কোভিড ১৯ এ আক্রান্ত হয়েছে, সেগুলো মানুষের মাধ্যমেই সংক্রামিত হয়েছিলো।

সুতরাং, দয়া করে আপনার পোষা প্রাণীটিকে ত্যাগ করবেন না এবং তাদের প্রতি কোনো অবহেলা, অযত্ন করবেন না। এখন যেটি প্রয়োজন, সবসময় নিজে এবং নিজের পোষা প্রাণীকে পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখা। পোষা প্রাণীকে কোনো কারণে ধরার প্রয়োজন হলে তার আগে এবং পরে ভালো করে সাবান/স্যানিটাইজার দিয়ে হাত জীবাণুমুক্ত করে নিন। কারও মধ্যে কোভিড-১৯ এর উপসর্গ দেখা দিলে তাদেরকে পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের সাথে সাথে পোষা প্রানীদের কাছ থেকেও দূরে রাখতে হবে। এই মহামারী মোকাবেলায় আমরা নিজেরা ঘরে থাকি এবং আমাদের পোষা প্রাণীদেরকেও ঘরে রাখি।

তথ্যসূত্র

ওরেগন ভেটেরিনারির লিঙ্ক এখানে

ওয়ার্ল্ড অর্গানাইজেশন ফর এনিম্যাল হেলথ-এর লিঙ্ক এখানে

গার্ডিয়ানের প্রতিবেদন 

বিড়াল থেকে করোনা সংক্রামণের বিষয়ে আরও পড়ুন এখানে

আল-জাজিরার প্রতিবেদন

নিউ ইয়র্ক টাইমসের প্রতিবেদন

আপনি কি এমন কোন খবর দেখেছেন যার সত্যতা যাচাই করা প্রয়োজন?
কোন বিভ্রান্তিকর ছবি/ভিডিও পেয়েছেন?
নেটে ছড়িয়ে পড়া কোন গুজব কি চোখে পড়েছে?

এসবের সত্যতা যাচাই করতে আমাদেরকে জানান।
আমাদেরকে ইমেইল করুনঃ contact@fact-watch.org
অথবা ফেইসবুকে মেসেজ দিনঃ fb.com/search.ulab

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *