ফেসবুক কি আল জাজিরার প্রতিবেদনটি সরিয়ে নেবে বলে সিদ্ধান্ত জানিয়েছে?

Published on: February 23, 2021

২০শে ফেব্রুয়ারি ‘আল জাজিরার প্রতিবেদন: সিদ্ধান্ত জানিয়েছে ফেসবুক’ এই শিরোনামে প্রতিবেদন ছাপিয়েছে  বেশ কয়েকটি সংবাদমাধ্যম। সেখানে বলা  হয়েছে ফেইসবুক তাদের নিজেদের প্লাটফর্ম থেকে আল জাজিরার অনুসন্ধানী প্রতিবেদন ‘অল দ্য প্রাইম মিনিস্টারস মেন’ সরিয়ে নেবে  কিন্তু ফেইসবুক জানিয়েছে “আমরা বিটিআরসির কাছ থেকে ডকুমেন্টারি সরিয়ে নেওয়ার জন্য হাইকোর্টের লিখিত নির্দেশনা পাইনি। আমরা এই বিষয়ে কোন বিবৃতি দেইনি”।

হাইকোর্ট বিটিআরসিকে আল জাজিরা টেলিভিশনের ‘অল দ্য প্রাইম মিনিস্টারস মেন’ তথ্যচিত্রটি সব অনলাইন প্ল্যাটফর্ম ও সামাজিক মাধ্যম থেকে  অপসারণ করতে  নির্দেশ দিয়েছে। গত সোমবার ১৫ ই ফেব্রুয়ারি অ্যামিকাস কিউরির অভিমত শোনার পর আদালত গত বুধবার ১৭ই ফেব্রুয়ারি শুনানির দিন রাখেন। ওই দিন তথ্যচিত্রটি দেশ-বিদেশে ইউটিউব, ফেসবুক, টুইটারসহ অন্যান্য সামাজিক মাধ্যম থেকে অপসারণে দ্রুত যথাযথ পদক্ষেপ নিতে বিটিআরসিকে নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। কিন্তু এ বিষয়ে ফেইসবুকের সিদ্ধান্ত নিয়ে পরস্পরবিরোধী বক্তব্য পাওয়া যাচ্ছে বিভিন্ন সংবাদ প্রতিবেদনে।

ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তফা জব্বারকে উদ্ধৃত করে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম দাবি করেছে ফেইসবুক প্রতিবেদনটি সরিয়ে ফেলবে। সময়নিউজটিভি লিখেছে, “শনিবার (২০ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় টেলিফোনে সংবাদমাধ্যমকে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী জানান, ফেসবুক কর্তৃপক্ষের সঙ্গে একাধিকবার কথা হয়েছে। ফেসবুকের বাংলাদেশ বিষয়ক কর্মকর্তা সাবহানাজ রশীদ দিয়ার সঙ্গেও কথা হয়েছে। ফেসবুক অফিসিয়ালি জানিয়েছে, তারা খুব দ্রুতই আলজাজিরার প্রতিবেদনটি সরিয়ে নেবে”।

সময়টিভিনিউজের প্রতিবেদন

 


 

দ্য বিজনেস স্ট্যান্ডার্ড পত্রিকাটিও মোস্তফা জব্বারকে উদ্ধৃত করেই তাদের শিরোনামে লিখেছে “Facebook, Youtube agree to remove Al Jazeera’s ‘All the Prime Minister’s Men’: Jabbar”।

 

অন্যান্য অনলাইন পোর্টালের স্ক্রিনশটগুলো দেখুন

;

 

 


তবে ফেইসবুকের পক্ষে বাংলাদেশে জন-সংযোগকারী প্রতিষ্ঠান বেঞ্চমার্ক পিআর ইমেইলের মাধ্যমে ফেইসবুকের তরফ থেকে শনিবার রাতে জানিয়েছে, “আমরা বিটিআরসির কাছ থেকে ডকুমেন্টারি সরিয়ে নেওয়ার জন্য হাইকোর্টের লিখিত নির্দেশনা পাইনি। আমরা এই বিষয়ে কোন বিবৃতি দেইনি।” বেশ কয়েকটি শীর্ষস্থানীয় সংবাদমাধ্যম থেকে আমরা এসব তথ্য জানতে পারি। দেখুন বাংলা ট্রিবিউন এবং প্রথম আলোর প্রতিবেদনটি।

এমন সাংঘর্ষিক পটভূমিতে ফেইসবুকের বক্তব্য নিয়ে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তফা জব্বারের সাথে  যোগাযোগ করা হলে তিনি বিবিসি বাংলাকে বলেন, ফেইসবুকের কাছে আদালতের রায়ের ল’ইয়ার্স কপি পাঠানো হয়েছে কিন্তু  পূর্ণাঙ্গ  সার্টিফায়েড কপি পাঠানো হয়নি।

পরবর্তীতে মোস্তফা জব্বারে উক্তি নিয়ে  প্রথম আলোকে আবার বলেন,‘ফেইসবুক সরিয়ে নিতে সম্মত হয়েছে এমন বক্তব্য আমি দিইনি। আমাকে মিসকোট (উক্তি ভুলভাবে উপস্থাপন) করা হয়েছে। ফেইসবুক আমাদের জানিয়েছে, তারা আমাদের অনুরোধ পর্যালোচনা করছে।’

ফেইসবুক এবং মন্ত্রী মোস্তফা জব্বারের সর্বশেষ বক্তব্যের ভিত্তিতে দেখা যাচ্ছে, তথ্যচিত্রটি তুলে নেয়া হবে কিনা তা ফেইসবুক সেই সিদ্ধান্ত জানায় নি। তাই গনমাধ্যমগুলোতে প্রকাশিত ফেইসবুকের তথ্যচিত্রটি সরিয়ে নেবার দাবিটি মিথ্যা।

তথ্যসূত্র

সময়টিভিনিউজের প্রতিবেদন

দ্য বিজনেস স্ট্যান্ডার্ড-এর প্রতিবেদন

বাংলা ট্রিবিউন

প্রথম আলোর প্রতিবেদন

বিবিসি বাংলা

 

আপনি কি এমন কোন খবর দেখেছেন যার সত্যতা যাচাই করা প্রয়োজন?
কোন বিভ্রান্তিকর ছবি/ভিডিও পেয়েছেন?
নেটে ছড়িয়ে পড়া কোন গুজব কি চোখে পড়েছে?

এসবের সত্যতা যাচাই করতে আমাদেরকে জানান।
আমাদেরকে ইমেইল করুনঃ contact@fact-watch.org
অথবা ফেইসবুকে মেসেজ দিনঃ fb.com/search.ulab

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *