সরকার কি ঈদের পর সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে?

বুধবার ২৩ শে জুলাই সন্ধ্যায় “বাংলাদেশ জাতীয় শিক্ষা বোর্ড” নামে একটি ফেইসবুক পেইজ থেকে পোস্ট করা হয়: “ঈদের পর সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার সিদ্ধান্ত নিচ্ছে সরকার।” পোস্টটি দ্রুতই ভাইরাল হয়ে ওঠে। ফ্যাক্ট ওয়াচের নেওয়া স্ক্রিন শটে আপনার দেখবেন তাতে ওই মূহুর্তে ২৫ হাজার রিএক্ট এবং ১০ হাজার কমেন্ট!

লক্ষ্য করে দেখা যায় পেইজটির “এবাউট’ তথ্যে বেশ কিছু অসংগতি রয়েছে। প্রথমত, বাংলাদেশে “জাতীয়” শিক্ষা বোর্ড বলতে কিছু নেই, এলাকা ভিত্তিক বোর্ড গুলো শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নিয়ন্ত্রনাধীন। পেইজে যে ওয়েবসাইট এর কথা লেখা আছে, ক্লিক করলে দেখা যায় এই ডোমেইন বিক্রি হবে! ফলে, অনেকের মনেই পেইজটির বিশ্বাসযোগ্যতা বিষয়ে সংশয় তৈরি হয়। অনেকেই এ নিয়ে নিজের একাউন্টে পোস্ট করে। শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন গ্রূপে এ নিয়ে আলোচনা শুরু হয়।

ভুয়া পোস্টের লিঙ্ক


বুধবার রাত ১২টার কিছু আগে শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে তাদের ফেইসবুক পেইজে এ বিষয়ে একটি বিজ্ঞপ্তি পোস্ট করা হয়। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা মহম্মদ আবুল খায়েরের বরাত দিয়ে তাতে জানানো হয় যে এই সংবাদটি একটি গুজব। ঈদের পর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার ব্যপারে এখনো কোন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় নি। শিক্ষা মন্ত্রণালয় এধরনের যেকোন সিদ্ধান্ত সাথে সাথে গণমাধ্যমের সাহায্যে জানিয়ে দেবে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ফেইসবুক পেইজ


এই পোস্ট সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তির পোস্ট


ফ্যাক্ট চেকিং সংগঠন বুম বাংলাদেশ-ও এই পোস্ট টির সত্যতা যাচাই করে জানায় যে এটি একটি ভুয়া খবর। ফেইসবুক থেকে পোস্ট টিকে ট্যাগ করে দেওয়া হয়। পোস্টের নীচেই বুম বাংলাদেশের ফ্যাক্ট চেক-এর লিঙ্ক ও “রিলেটেড আরটিকল” হিসেবে দেখা যাচ্ছে।

বুম বাংলাদেশের ফ্যাক্ট চেকের লিঙ্ক

এই ঘটনায় উঠে আসে কীভাবে বিপুল সংখ্যক নাগরিক এই ভুয়া পেইজটির আপাত অফিসিয়াল চেহারা দেখে বিভ্রান্ত হয়েছেন। পেইজটি শুরুতে কিছু সঠিক তথ্য পরিবেশন করে মানুষের মধ্যে সাময়িক আস্থা তৈরি করলেও এক পর্যায়ে ভুয়া তথ্য ছড়িয়ে দেয়। অপতথ্য ঠেকাতে তাই প্রতিবারই যেকোন পোস্ট শেয়ার করার আগে এর উত্স এবং বিশ্বাসযোগ্যতা বিবেচনা করা জরুরী।

 

তথ্যসূত্র

ভুয়া পোস্টের লিঙ্ক

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ফেইসবুক পেইজ

এই পোস্ট সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তির পোস্ট

আপনি কি এমন কোন খবর দেখেছেন যার সত্যতা যাচাই করা প্রয়োজন?
কোন বিভ্রান্তিকর ছবি/ভিডিও পেয়েছেন?
নেটে ছড়িয়ে পড়া কোন গুজব কি চোখে পড়েছে?

এসবের সত্যতা যাচাই করতে আমাদেরকে জানান।
আমাদেরকে ইমেইল করুনঃ contact@fact-watch.org
অথবা ফেইসবুকে মেসেজ দিনঃ fb.com/search.ulab

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *