কাচ্চি বিরিয়ানির নামে “কুত্তা বিরিয়ানি” খাওয়ানোর গুজব – ভারতের ভিডিও

Published on: June 12, 2024

সম্প্রতি সামাজিক মাধ্যমে “রাজধানীতে কাচ্চি বিরানির নামে খাওয়ানো হচ্ছে কুত্তা বিরিয়ানি – কাচ্চি বিরিয়ানি লাভারদের আমন্ত্রণ” শিরোনামে বস্তাবন্দি কয়েকটি কুকুরের একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে। ভিডিওটি দেখে এবং এর কথকের সিলেটের আঞ্চলিক ভাষার উচ্চারণ শুনে অনেকেই এটিকে বাংলাদেশের ঘটনা বলে মনে করছেন। তবে, ফ্যাক্টওয়াচ অনুসন্ধান করে দেখেছে যে, সামাজিক মাধ্যমে শেয়ারকৃত ভিডিওটি বাংলাদেশের নয়। বরং, ভারতের আসামের করিমগঞ্জ জেলা থেকে পাচার করার উদ্দেশ্যে নিয়ে যাওয়ার সময় উদ্ধার হওয়া ১৪ টি কুকুরের ভিডিও এটি। Ashroy – Karimganj  নামক একটি এনজিও’র ফেসবুক পেজ থেকে মূল ভিডিওটির সন্ধান পাওয়া গেছে, যার সাথে আমাদের আলোচিত ভিডিওটির বেশ মিল রয়েছে। মূলত Ashroy – Karimganj – এর ফেসবুক পেইজ থেকে প্রাপ্ত ভিডিও’র কিছু অংশ কেটে সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়া হয়েছিল, যা দেখে এটিকে বাংলাদেশের ঘটনা বলে মনে হয়েছে। সঙ্গত কারণে ফ্যাক্টওয়াচ সামাজিক মাধ্যমে শেয়ারকৃত ভিডিওটির সাথে সংশ্লিষ্ট দাবিকে “বিভ্রান্তিকর” বলে সাব্যস্ত করছে। 

 

অনুসন্ধান: 

সামাজিক মাধ্যমে শেয়ারকৃত ভিডিওটির সাথে বাংলাদেশের সংশ্লিষ্টতা রয়েছে কিনা সেটি যাচাই করতে আমরা পুরো ভিডিওটি ভালোভাবে পর্যবেক্ষণ করি। আলোচিত ভিডিওটির এক পর্যায়ে কুকুরগুলো পাচার করার কাজে ব্যবহৃত একটি সাদা রঙের ওয়াগন গাড়িতে ‘AS 10E 2913’ লেখা সংবলিত নাম্বার প্লেটটি দৃশ্যমান হয়। বলাবাহুল্য, উক্ত নাম্বার প্লেটের ধরণের সাথে বাংলাদেশের যানবাহনে ব্যবহৃত নাম্বার প্লেটের ধরণের কোন মিল নেই। তাছাড়া, ঐ নাম্বার প্লেটটির একদম বামপাশে অস্পষ্টভাবে ‘IND’ লেখাটি আমাদের দৃষ্টিগোচর হয়েছে৷ এ থেকে ধারণা করা যাচ্ছে, গাড়িটি ভারতে নিবন্ধন করা হয়েছে। 

এই বিষয়টি সম্পর্কে আরও নিশ্চিত হতে আমরা আলোচিত ভিডিওটির উৎস অনুসন্ধান করি। রিভার্স ইমেজ সার্চ পদ্ধতিতে অনুসন্ধান করে ANNNEWS 24 নামক একটি ইউটিউব চ্যানেল থেকে গত ২২ মে ২০২৪ এ প্রকাশিত কুকুর চুরি করতে এসে আটক দুই শিলচরে – শিরোনাম সংবলিত একটি ভিডিও খুঁজে পাওয়া গেছে। উক্ত ভিডিওটির এক পর্যায়ে দেখা গেছে সেখানে দৃশ্যমান একটি সাদা রঙের ওয়াগন গাড়ির নাম্বার প্লেটের সাথে আমাদের আলোচিত ভিডিওটিতে দৃশ্যমান নাম্বার প্লেটের মিল রয়েছে। উল্লেখ্য, ANN NEWS 24 ভারতের আসাম-ভিত্তিক একটি সংবাদমাধ্যম। অনুসন্ধানে Barak Bani News নামক আরেকটি আসাম-ভিত্তিক সংবাদমাধ্যমের ফেসবুক পেজে গত ২২ মে ২০২৪ এ প্রকাশিত মিজোরামে ১৪টি কুকুর পাচার করতে গিয়ে শিলচর আইএসবিটিতে জনরোষে ৩ পাচারকারী – শিরোনাম সংবলিত একটি ভিডিও খুঁজে পাওয়া গেছে। উক্ত ভিডিওটিরও এক পর্যায়ে সাদা রঙের ওয়াগন গাড়িটির নাম্বার প্লেটের সাথে আগের দুটো ভিডিওতে দৃশ্যমান নাম্বার প্লেটের বেশ মিল লক্ষ্য করা গেছে। এখন আমরা মোটামুটি নিশ্চিত যে সাদা ওয়াগন গাড়িটি ভারতে নিবন্ধিত এবং কুকুর উদ্ধারের ঘটনাটি ভারতের আসামের। 


এরপর আমরা Barak Bani News কর্তৃক প্রকাশিত ভিডিওটি থেকে দুটো এনজিও’র নাম জানতে পারি। উক্ত এনজিও দুটো হচ্ছে আশ্রয় এবং স্পর্শ। পরবর্তীতে ফেসবুকে এই দুটো নাম লিখে অনুসন্ধান করার পর Ashroy – Karimganj এবং Sporsho – Touch The Animals নামক আসামের শিলচরের ঠিকানাযুক্ত দুটো ফেসবুক পেইজের খোঁজ পাওয়া গেছে। Sporsho – Touch The Animals – এর ফেসবুক পেজ ঘেঁটে দেখা গেছে তারা গত ২২ মে ২০২৪ এ একটি পোস্ট শেয়ার করেছিল, যেখানে দৃশ্যমান বস্তাবন্দি কুকুরগুলোর সাথে আমাদের আলোচিত ভিডিও এবং পরবর্তীতে প্রাপ্ত দুটো সংবাদমাধ্যমের ভিডিওতে দৃশ্যমান কুকুরগুলোর মিল রয়েছে। অন্যদিকে, Ashroy – Karimganj নামক ফেসবুক পেইজটি ঘেঁটে গত ২২ মে ২০২৪ এ ধারণকৃত একটি ফেসবুক লাইভ ভিডিও এবং ২৪ মে ২০২৪ এ প্রকাশিত দুই মিনিট ৪২ সেকেন্ডের একটি ভিডিও খুঁজে পাওয়া গেছে। এর মাঝে ২২ মে ২০২৪ এ ধারণকৃত লাইভ ভিডিওটির কিছু অংশের সাথে আমাদের আলোচিত ভিডিওটির বেশ মিল লক্ষ্য করা গেছে। এ থেকে বুঝা যাচ্ছে, Ashroy – Karimganj এর ফেসবুক পেইজটি থেকে প্রাপ্ত ভিডিওটি হচ্ছে আমাদের আলোচিত ভিডিওটির উৎস এবং মূল ভিডিও থেকে কিছু অংশ কেটে সামাজিক মাধ্যমে এমনভাবে ছড়িয়ে দেয়া হয়েছিল যে সেটি দেখে বাংলাদেশের ঘটনা বলে মনে হচ্ছিল। 

বাংলাদেশের ঘটনা মনে করে শেয়ারকৃত ভিডিও’র কয়েকটি নমুনা দেখবেন এখানে, এখানে, এখানে, এখানে, এখানে, এখানে, এবং এখানে

অতএব, উপরের আলোচনা থেকে এই বিষয়টি নিশ্চিত যে, সামাজিক মাধ্যমে শেয়ারকৃত ভিডিওটির সাথে বাংলাদেশের কোন সংশ্লিষ্টতা নেই। বরং, সেটি ভারতের আসামের একটি ঘটনা।

সুতরাং, সবকিছু বিবেচনা করে ফ্যাক্টওয়াচ সামাজিক মাধ্যমে শেয়ারকৃত ভিডিওটির সাথে সংশ্লিষ্ট দাবিকে বিভ্রান্তিকর বলে সাব্যস্ত করছে।

এই নিবন্ধটি ফেসবুকের ফ্যাক্ট-চেকিং প্রোগ্রামের নীতি মেনে লেখা হয়েছে।।
এর উপর ভিত্তি করে ফেসবুক যে ধরণের বিধিনিষেধ আরোপ করতে পারে, সে সম্পর্কে বিস্তারিত জানুন এখানে
এছাড়া এই নিবন্ধ সম্পর্কে আপনার মূল্যায়ন, সম্পাদনা কিংবা আরোপিত বিধিনিষেধ তুলে নেয়ার জন্য আবেদন করতে এই লিঙ্কের সাহায্য নিন।

কোনো তথ্যের সত্যতা যাচাই করতে আমাদেরকেঃ
ইমেইল করুনঃ contact@factwatch.org
অথবা ফেইসবুকে মেসেজ দিনঃ facebook.com/fwatch.bangladesh