সিরিয়ান বড় বোনের কি মৃত্যু হয়েছিল?

ভাইরাল হওয়া এই ছবিতে দাবি করা হচ্ছে  যে, এক সিরিয়ান কিশোরী তাঁর ছোট বোনকে অক্সিজেন মাস্ক পরিয়ে নিজেই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েছে।

সিরিয়ার ঘুটা অঞ্চলে জঘন্যতম হামলা চালিয়ে যাচ্ছে সরকার। বিরোধীদলীয় এই অঞ্চলকে রাষ্ট্রের আয়ত্তায় আনার জন্য বোমা হামলা থেকে শুরু করে, রসায়নিক মারণাস্ত্রের ব্যাবহারের প্রমাণ পর্যন্ত মিলেছে। মৃত্যুসংখ্যা হাজার ছাপিয়ে গিয়েছে।

তবে অনলাইনে প্রচলিত সকল ছবিই সম্প্রতি ঘটে যাওয়া এই যুদ্ধের নয়। সত্যতা যাচাইয়ের স্বার্থে নীচের ছবির বিশ্লেষণ করা হল।

সম্প্রতি,সিরিয়ায় রাসায়নিক অস্ত্রের হামলাকে কেন্দ্র করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি ছবি ভাইরাল হয়।এই নিয়ে বেশকিছু অনলাইন পোটালও তাদের নিউজ সাজিয়েছে।

একুশে টেলিভিশনের ওয়েবসাইটে বোনকে মৃত হিসাবে লেখা হয়েছে।

কিন্তু, সত্য ঘটনা হচ্ছে এই যে, ভাইরাল হওয়া ছবিটি আরও একমাস আগে বিদেশী গণমাধ্যমে প্রকাশ হয়েছে। বেশকিছু কিছু বিদেশী গণমাধ্যম জানুয়ারি ২০১৮ তে এই ছবিটি প্রকাশ করে। নিউজে প্রকাশ করা হয়, ২২ জানুয়ারি সিরিয়ার রাজধানী দামেস্কের উপকণ্ঠে ঘোটা অঞ্চলে বিদ্রোহী দখলকৃত শহর দাউমাতে একটি গ্যাসক্ষেত্রে গ্যাসের হামলার পর একটি সিরীয় মেয়ে একটি শিশুকে একটি অক্সিজেন মাস্ক পরিয়ে রাখে। তবে বড় বোন বেঁচে আছে নাকি না, তা নিয়ে কোন সঠিক তথ্য পাওয়া যায়নি।

খবরটি এবারের যুদ্ধের নয়

সুতরাং, সংশ্লিষ্ট ঘটনার সাথে ছবির অমিল রয়েছে। ভাইরাল হওয়া ছবিটি সমসাময়িক ঘটনা নিয়ে নয়। এটি পূর্বে ঘটে যাওয়া একটি ঘটানার ছবি।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *