আমির খান কট্টরপন্থী, কঙ্গনার এই দাবি কি সত্য?

কঙ্গনা রানাউত তার টুইটারে আমির খানের একটি সাক্ষাত্কাররের উপর ভিত্তি করে দাবি করেছেন যে, “আমির একজন চরমপন্থী এবং স্ত্রী হিন্দু হওয়া সত্ত্বেও তার সন্তানরা কেবল ইসলামকেই অনুসরণ করবে”। তবে যে সাক্ষাতকারের ভিত্তিতে কঙ্গনা মন্তব্যটি করেছে তা ভুয়া ও ভিত্তিহীন এবং অনির্ভরযোগ্য একটি ওয়েবসাইট থেকে প্রকাশিত।

১লা জুন, ২০১২তে প্রকাশিত আমিরের ভুয়া সাক্ষাৎকার

তানকিদডটকম নামের ওয়েবসাইটিতে ২০১২ সালে আমির খানের একটি সাক্ষাত্কার প্রকাশ করা হয় যেখানে অভিনেতাকে তার পারিবারিক ধর্মীয় দ্বিধাদ্বন্দ্বের বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে সে জানায়, “আমরা কখনই একে অপরের ধর্ম অনুশীলন করি না বা একে অপরকে তা করতে বাধ্যও করি না। তবে অবশ্যই আমার বাচ্চারা কেবল ইসলামী ধর্ম অনুসরণ করবে”। এই সাক্ষাত্কারকে দলিল বানিয়ে কঙ্গনা আমির খানকে উগ্রবাদী বলে এবং ১৭ই আগস্ট, তার আরেকটি টুইটে তাকে ঠাট্টা করে “সহনশীল” ব্যক্তি থেকে হিন্দু ধর্মের প্রতি “অসহিষ্ণু” হয়ে ওঠার ব্যাপারেও প্রশ্ন তোলে।

কঙ্গনার টুইটারের অনুবাদ

  • হিন্দু + মুসলিম = মুসলিম
    এটা তো কট্টরপন্থী, একটি বিয়ে কেবল জিন ও সংস্কৃতি মিশ্রণ নয়, এটা ধর্মেরও। বাচ্চাদের আল্লাহর ইবাদত করা শেখান এবং শ্রীকৃষ্ণের ভক্তিও, এটাই কি ধর্মনিরপেক্ষতা নয়?


  • “@আমির খান, আপনি যেখানে এতো উদার ছিলেন, কবে থেকে হিন্দু ধর্মের প্রতি এমন অসহিষ্ণু হয়ে উঠলেন? হিন্দু মায়েরা যে শিশুদের জন্ম দেন তাদের রক্তে রয়েছে শ্রীকৃষ্ণ ও শ্রীরাম তাদের শিরা-উপশিরায়। তারা সনাতনধর্ম ও ভারতীয় সভ্যতার উত্তরাধিকারকে এগিয়ে নিয়ে যায়। কেন তারা কেবল ইসলাম ধর্ম অনুসরণ করবে?”

টুইটগুলোর স্ক্রিনশট

 

তবে কেবল কঙ্গনাই না, ভারতের অনেক উল্লেখযোগ্য ব্যক্তিত্বকেও এই একই সাইটের সাক্ষাৎকারকে ঢাল বানিয়ে আমিরের সমালোচনা করতে দেখা গিয়েছে। তারেক ফাতেহ্‌ একজন পাকিস্তানী বংশোদ্ভূত বিশিষ্ট কানাডিয়ান সাংবাদিক, তার টুইটার থেকে গত ১৮ই আগস্ট একই ভুয়া সাক্ষাৎকারের স্ক্রিনশট দিয়ে ক্যাপশনে লিখেছেন, “My wives may be hindu, but my kids will follow only Islam”।

আরও কিছু টুইটের স্ক্রিনশট

 


ভুয়া সাক্ষাৎকারের উৎস

‘My wives may be Hindu but my kids will always follow only Islam’- এই শিরোনামটি লিখে অনুসন্ধান করে আমরা ২০১০ সালের আরেকটি ব্লগপোস্টের খোঁজ পাই। এসএসমিউজিক নামের এই ব্লগে প্রকাশিত আমিররের গল্পটি হুবাহু তানকিদের সাক্ষাৎকার গল্পের সাথে মিলে যায়।

স্ক্রিনশটটি দেখুন

 

 

 

 

 

 

 

রজত শর্মার সাথে একটি সাক্ষাত্কারে গুজবের খোলাসা

আমির খান ২০১৬ সালে রজত শর্মার সাথে একটি সাক্ষাত্কারে বলেছিলেন যে তিনি দীর্ঘদিন থেকে একপ্রকার ধর্মভিত্তিক ষড়যন্ত্রের স্বীকার হয়ে আসছেন। সেখানে তিনি ভাইরাল হওয়া এই ভুয়া সাক্ষাৎকার ও আরও কিছু বিভ্রান্তিকর ষড়যন্ত্রের কথা উল্লেখ করে বলেন, এসব উস্কানিমূলক অপপ্রচারের বিরুদ্ধে তিনি একটি এফআইআর করেছিলেন। আমির আরও জানিয়েছেন, এ জাতীয় গুজব যারা ছড়াচ্ছিল, পুলিশ তাদের মধ্যে দুজনকে ধরেছিল। নকল ভিডিও ও তা ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়ার অপরাধে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

ভিডিওটি দেখুন


ফ্যাক্টওয়াচের সিদ্ধান্ত

আমিরের ২০১৬ সালের সাক্ষাৎকার ও অনির্ভরযোগ্য বেশ কিছু সাইট পর্যবেক্ষণ করে স্পষ্টতই ধারণা করা যায়, কঙ্গনার দাবিটি একটি অপতথ্যের ভিত্তিতে তৈরি এবং তার টুইটে মতামত দানকারীরাও অচিরে বিভ্রান্তির স্বীকার হচ্ছে। বিভিন্ন ফ্যাক্টচেক সংস্থা ও নির্ভরযোগ্য সংবাদমাধ্যম এই ভুয়া দাবির অসঙ্গতি নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশের করলেও কঙ্গনা তার টুইটটি মুছে ফেলেনি। ফ্যাক্টচেক সংস্থা বুমলাইভের প্রতিবেদনটি পড়ুন এখানে এবং হিন্দুস্তান টাইমসের প্রতিবেদন দেখুন এখানে

তথ্যসূত্র

হিন্দুস্তান টাইমসের প্রতিবেদন দেখুন এখানে

বুমলাইভের প্রতিবেদনটি পড়ুন এখানে

তানকিদডটকম এর ভুয়া সাক্ষাৎকার

এসএসমিউজিক

আপনি কি এমন কোন খবর দেখেছেন যার সত্যতা যাচাই করা প্রয়োজন?
কোন বিভ্রান্তিকর ছবি/ভিডিও পেয়েছেন?
নেটে ছড়িয়ে পড়া কোন গুজব কি চোখে পড়েছে?

এসবের সত্যতা যাচাই করতে আমাদেরকে জানান।
আমাদেরকে ইমেইল করুনঃ contact@fact-watch.org
অথবা ফেইসবুকে মেসেজ দিনঃ fb.com/search.ulab

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *