হার্ভার্ডে আমেরিকার পতাকা নামিয়ে ফিলিস্তিনের পতাকা উড়ানো হয়নি

Published on: May 20, 2024

ফিলিস্তিনে ইসরায়েলের হামলার প্রতিবাদে আমেরিকা এবং ইউরোপের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করছে শিক্ষক এবং শিক্ষার্থীরা। তারই ধারাবাহিকতায় গত ২৭ এপ্রিল ২০২৪ এ আমেরিকার হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে ফিলিস্তিনের তিনটি পতাকা উড়িয়েছে বিক্ষোভরত শিক্ষার্থীরা। হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে ফিলিস্তিনের পতাকা উড়ানোর একটি ভিডিও শেয়ার হতে দেখা গেছে সামাজিক মাধ্যমে। ভিডিওটির সাথে সংশ্লিষ্ট ক্যাপশনে দাবি করা হচ্ছে, হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা সেদিন আমেরিকার পতাকা নামিয়ে ফিলিস্তিনের পতাকা উড়িয়েছে! তবে বাস্তবতা পুরোপুরি ভিন্ন৷ এই ঘটনার পর হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের পাবলিক রিলেশনস অফিসার একটি বিবৃতিতে জানিয়েছেন, ফিলিস্তিনির পতাকা উড়ানোর সময় সেখানে আমেরিকার পতাকা উড়ছিল না। তাছাড়া, বিশ্ববিদ্যালয়টির নিয়মানুযায়ী প্রত্যেক সোমবার থেকে শুক্রবার সকাল সাতটা থেকে বিকাল চারটা পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয় প্রাঙ্গণে আমেরিকার পতাকা উড়ানো হয়ে থাকে। এদিকে, বিভিন্ন আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম মারফত জানা গেছে, শিক্ষার্থীরা যেদিন ফিলিস্তিনের পতাকা উড়িয়েছিল সেদিন ছিল শনিবার। আমরা আগেই জেনেছি বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়মানুযায়ী শনিবার এবং রবিবার পতাকা উড়ানো হয় না। ফলে সামাজিক মাধ্যমে ভাইরাল হওয়া ভিডিওটির দাবি পুরোপুরি সঠিক নয়। সেদিন ফিলিস্তিনের পতাকা ঠিকই উড়ানো হয়েছিল, কিন্তু আমেরিকার পতাকা নামিয়ে নয়। সঙ্গত কারণে ফ্যাক্টওয়াচ সামাজিক মাধ্যমে শেয়ারকৃত ভিডিওটির দাবিকে “বিভ্রান্তিকর” বলে সাব্যস্ত করছে। 

 

অনুসন্ধান: 

সামাজিক মাধ্যমে শেয়ারকৃত ভিডিওটির দাবি যাচাই করতে গিয়ে আমরা আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম রয়টার্স এর একটি ফ্যাক্ট-চেকিং প্রতিবেদন খুঁজে পেয়েছি। হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে ফিলিস্তিনির পতাকা উড়ানোর ঘটনাটির একটি পূর্ণাঙ্গ বিবরণ পাওয়া গেছে দি হার্ভার্ড ক্রিমসন নামক ওয়েবসাইটে। গত ২৭ এপ্রিল ২০২৪, শনিবারে আমেরিকা সময় বিকাল ছয়টার কিছু আগে কিংবা পরে হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয় প্রাঙ্গণে জন হার্ভার্ডের প্রতিকৃতির উপর ফিলিস্তিনেতিনটি পতাকা উড়ায় প্রতিবাদরত শিক্ষার্থীরা। পরে বিকাল সাড়ে ছয়টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের দায়িত্বরত পুলিশ ক্যাম্পাস রক্ষণাবেক্ষণ কর্মীদের পতাকাগুলো নামিয়ে ফেলতে বলে। এই ঘটনার পর সেদিন সন্ধ্যায় হার্ভার্ডের মুখপাত্র জোনাথন এল. সোয়াইন (Jonathan L. Swain) জানান, পতাকা উড়ানোর কাজটি বিশ্ববিদ্যালয়ের পলিসি লঙ্ঘন করেছে এবং এর সাথে জড়িত ব্যক্তিদের বিরূদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। 

রয়টার্স ফ্যাক্ট-চেকের পক্ষ থেকে ফিলিস্তিনের পতাকা উড়ানোর ভিডিওটি নিয়ে জানতে চাওয়া হলে হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের পাবলিক অ্যাফেয়ার্স অ্যান্ড কমিউনিকেশনস অফিস ২৭ এপ্রিল ২০২৪ এ তাদের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত একটি বিবৃতি উল্লেখ করে জানায়, ফিলিস্তিনের পতাকা যখন উড়ানো হচ্ছিল তখন সেখানে আমেরিকার পতাকা উড়ছিল না। তাছাড়া, বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়মানুযায়ী প্রত্যেক সোমবার থেকে শুক্রবার সকাল সাতটা থেকে বিকাল চারটা পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয় প্রাঙ্গণে আমেরিকার পতাকা উড়ানো হয় এবং পরে সেটি নামিয়ে সযত্নে রেখে দেয়া হয়। অর্থাৎ, শনিবার এবং রবিবার আমেরিকায় সাপ্তাহিক ছুটি থাকায় এই দুই দিন পতাকা উড়ানো হয় না। আমরা ইতোমধ্যে জেনেছি, শিক্ষার্থীরা ফিলিস্তিনের পতাকাগুলো যেদিন উড়িয়েছিল সেদিনটি ছিল শনিবার। ফলে রয়টার্স ফ্যাক্ট-চেক, দি হার্ভার্ড ক্রিমসন, এবং হার্ভার্ড কমিউনিকেশনস অফিসের বক্তব্য অনুযায়ী, শনিবার শিক্ষার্থীরা কেবল ফিলিস্তিনের পতাকাই উড়িয়েছিলেন, কিন্তু আমেরিকার পতাকা নামিয়ে নয়কারণ, সেদিন সেখানে আমেরিকার পতাকা উড়ছিল না। 

অতএব, উপরের আলোচনা থেকে স্পষ্ট বুঝা যাচ্ছে যে, সামাজিক মাধ্যমে শেয়ারকৃত ভিডিওটির সাথে সংশ্লিষ্ট দাবিটি পুরোপুরি সঠিক নয়।

সুতরাং সবকিছু বিবেচনা করে ফ্যাক্টওয়াচ উক্ত ভিডিওটির দাবিকে বিভ্রান্তিকর বলে সাব্যস্ত করছে। 

সামাজিক মাধ্যমে শেয়ারকৃত এমন কিছু ভিডিও এবং পোস্টের নমুনা দেখতে পারবেন এখানে, এখানে, এখানে, এবং এখানে

এই নিবন্ধটি ফেসবুকের ফ্যাক্ট-চেকিং প্রোগ্রামের নীতি মেনে লেখা হয়েছে।।
এর উপর ভিত্তি করে ফেসবুক যে ধরণের বিধিনিষেধ আরোপ করতে পারে, সে সম্পর্কে বিস্তারিত জানুন এখানে
এছাড়া এই নিবন্ধ সম্পর্কে আপনার মূল্যায়ন, সম্পাদনা কিংবা আরোপিত বিধিনিষেধ তুলে নেয়ার জন্য আবেদন করতে এই লিঙ্কের সাহায্য নিন।

কোনো তথ্যের সত্যতা যাচাই করতে আমাদেরকেঃ
ইমেইল করুনঃ contact@factwatch.org
অথবা ফেইসবুকে মেসেজ দিনঃ facebook.com/fwatch.bangladesh