শিশু হাসপাতালে আগুনের ঘটনায় নবজাতকের মৃত্যুর ঘটনাটি বাংলাদেশের নয়

Published on: May 26, 2024

যা ছড়িয়েছে: শিশু হাসপাতালে ভয়াবহ আগুন, ৭ নবজাতকের মর্মান্তিক মৃত্যু।

যে ধারণা দেয়া হচ্ছে: ঘটনাটি ঘটেছে বাংলাদেশে।

ফ্যাক্টওয়াচের সিদ্ধান্ত: দাবিটি বিভ্রান্তিকর। কারণ, শিশু হাসপাতালে আগুন লেগে নবজাতকদের মৃত্যুর ঘটনাটি বাংলাদেশের নয়। মূল ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের দিল্লিতে একটি শিশু হাসপাতালে। কিন্তু ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়া এসব সংবাদের শিরোনামে নির্দিষ্ট কোনো দেশ বা স্থানের উল্লেখ নেই। যে কারণে সংবাদটি দেখে প্রাথমিকভাবে মনে হচ্ছে এটি হয়তো বাংলাদেশের ঘটনা। যার ফলে সাধারণ ব্যবহারকারীদের অনেকে বিষয়টি বাংলাদেশের ঘটনা ভেবে শেয়ার করেছেন। অনেকেই আবার ঘটনাটির জন্য বাংলাদেশের হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে দায়ী করেছেন।

ফেসবুকে আলোচিত সংবাদটি বাংলাদেশের একটি মূলধারার গণমাধ্যমে “মধ্যরাতে শিশু হাসপাতালে ভয়াবহ আগুন, ৭ নবজাতকের মর্মান্তিক মৃত্যু” শিরোনামে প্রকাশিত হয়েছে। সংবাদটির সাথে একটি ফটোকার্ড ব্যবহার করা হয়েছে। ফটোকার্ডটিতে কোনো বাড়িতে আগুন লেগছে এমন ছবি ব্যবহার করা হয়েছে। তবে উক্ত সংবাদের বিস্তারিত অংশে দেখা যায়, ভারতের দিল্লিতে একটি শিশু হাসপাতালে এই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। নক্ষণীয় যে, উক্ত ঘটনাটি নিয়ে ডেইলি স্টারসহ আরও একাধিক মূলধারার গণমাধ্যম থেকে যেই প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে তার শিরোনাম হলো “দিল্লিতে শিশু হাসপাতালে আগুন, ৭ নবজাতকের মৃত্যু” বা “ভারতে শিশু হাসপাতালে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে ৭ নবজাতকের মৃত্যু”।

উল্লেখ্য যে, প্রতিবেদনগুলো বিশ্লেষণ করে দেখা যায় প্রতিবেদনের শিরোনামে যখন স্থানের নাম দিল্লি বা দেশের নাম ভারত উল্লেখ করা হয়, তখন তা নিয়ে কোনো বিভ্রান্তি হয় নি। অথচ “শিশু হাসপাতালে ভয়াবহ আগুন, ৭ নবজাতকের মর্মান্তিক মৃত্যু” এ জাতীয় শিরোনাম বিভ্রান্তি ছড়িয়েছে। তাছাড়া এটি বাংলাদেশের কোনো ঘটনা ভেবে অনেকেই সংবাদটির নিচে বিভিন্ন মন্তব্য করেছেন। ভেতরের সংবাদ পড়ে যখন দেখেছেন এটি ভারতের দিল্লির ঘটনা তখন বাংলাদেশের সাংবাদিকতার মান এবং এমন ক্লিকবেট শিরোনাম নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন।

ফেসবুক ভাইরাল এমন কিছু লিংক বাছাই করা হয়েছে। যা দেখতে পাবেন এখানে, এখানে, এখানে, এখানে এবং এখানে

উল্লেখ্য, ভারতে ঘটে যাওয়া ঘটনাটি নিয়ে ভারতীয় গণমাধ্যমে যে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে সেখানে সংবাদের শিরোনামেই ঘটনাস্থলের কথা উল্লেখ আছে। অথচ বাংলাদেশের একটি গণমাধ্যমের শিরোনামে স্থানে বা দেশের নাম উল্লেখ নেই। যার ফলে স্বভাবতই জনসাধারণ বিভ্রান্ত হয়েছেন এবং বাংলাদেশের ঘটনা ভেবে সংবাদটি শেয়ার করেছেন।

এছাড়া আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম আলজাজিরা থেকে “Fire at children’s hospital kills seven newborns in India’s capital” শিরোনামে সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে।

সুতরাং, সবকিছু বিবেচনা করে ফেসবুকে ভাইরাল হওয়া সংবাদটিকে ফ্যাক্টওয়াচ “বিভ্রান্তিকর” হিসেবে সাব্যস্ত করেছে।

এই নিবন্ধটি ফেসবুকের ফ্যাক্ট-চেকিং প্রোগ্রামের নীতি মেনে লেখা হয়েছে।।
এর উপর ভিত্তি করে ফেসবুক যে ধরণের বিধিনিষেধ আরোপ করতে পারে, সে সম্পর্কে বিস্তারিত জানুন এখানে
এছাড়া এই নিবন্ধ সম্পর্কে আপনার মূল্যায়ন, সম্পাদনা কিংবা আরোপিত বিধিনিষেধ তুলে নেয়ার জন্য আবেদন করতে এই লিঙ্কের সাহায্য নিন।

কোনো তথ্যের সত্যতা যাচাই করতে আমাদেরকেঃ
ইমেইল করুনঃ contact@factwatch.org
অথবা ফেইসবুকে মেসেজ দিনঃ facebook.com/fwatch.bangladesh