সাবেক ছাত্রলীগ নেত্রীর নামে স্বর্ণ নিয়ে ধরা পড়ার ভুয়া তথ্য প্রচার

Published on: June 2, 2024

ফেসবুকে যা ছড়িয়েছে: পায়ুপথে এক কেজি স্বর্ণ নিয়ে ধরা পড়েছে সাবেক ছাত্রলীগ নেত্রী তিলোত্তমা শিকদার। এমন দাবির সাথে যমুনা টিভির ফটোকার্ডে তার একটি ছবি পোস্ট করা হয়েছে।

ফ্যাক্টওয়াচের সিদ্ধান্ত: দাবিটি বিকৃত। পায়ুপথে স্বর্ণ বহন করতে যেয়ে ধরা পড়ার মতো কোনো ঘটনার সাথে সাবেক ছাত্রলীগ নেত্রী তিলোত্তমা শিকদারের জড়িত থাকার কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি। তাকে নিয়ে যে দাবি করা হয়েছে তা বানোয়াট। মূল ঘটনা হলো, ভারতে সুরভী খাতুন নামের এক বিমানবালা পায়ুপথে স্বর্ণ নিয়ে পাচারের অভিযোগে গ্রেফতার হয়েছেন। যমুনা টিভি থেকে “পায়ুপথে এক কেজি স্বর্ণ নিয়ে ধরা গ্রেফতার বিমানবালা” শিরোনামে সংবাদটি ফটোকার্ডসহ প্রকাশিত হয়। সেই সংবাদ বর্তমানে তিলোত্তমা শিকদারের নামে প্রচার করা হচ্ছে। মূলত, যমুনা টিভির শিরোনাম বিকৃত করা হয়েছে। তাদের ফটোকার্ডের মতো করে আর একটি ফটোকার্ড তৈরি করা হয়েছে। মূল ছবি সরিয়ে দিয়ে সম্পাদনার মাধ্যমে সেখানে তিলোত্তমা শিকদারের ছবি বসানো হয়েছে।

সামাজিক মাধ্যমে শেয়ারকৃত পোস্ট বিশ্লেষণ করে দেখা যায়, তিলোত্তমা শিকদারের নামে দু ধরণের পোস্ট ভাইরাল হয়েছে। যমুনা টিভির ফটোকার্ড যুক্ত আর ফটোকার্ড ব্যতীত ছবি। যদিও দুটি জায়গায় একই দাবি করা হয়েছে।

ফটোকার্ড ব্যতীত ফেসবুক পোস্ট দেখুন এখানে এবং এখানে

ফটোকার্ড যুক্ত ফেসবুকে প্রচারিত কিছু পোস্ট দেখুন এখানেএখানে , এখানেএখানে এবং এখানে ।

 

দাবিটি বেশি গ্রহণযোগ্যতা পেয়েছে কারণ মূল ধারার গণমাধ্যম যমুনা টিভির ফটোকার্ডে তথ্যটি এসেছে। যমুনা টিভি যে ধরণের ফটোকার্ড তৈরি করে তার সাথে ভাইরাল ফটোকার্ডের মিল রয়েছে। তবে যমুনা টিভির ফেসবুক পেজে এবং ওয়েবসাইটে যেয়ে এ ধরণের কোনো সংবাদ পাওয়া যায়নি। অন্য কোনো গণমাধ্যমেও এ জাতীয় কোনো সংবাদ পাওয়া যায়নি।  বরং, যমুনা টিভির ফেসবুক পেজে “পায়ুপথে ১ কেজি স্বর্ণ নিয়ে ধরা গ্রেফতার বিমানবালা” শিরোনামে প্রকাশিত একটি ফটোকার্ড খুঁজে পাওয়া যায়। ১ জুন ২০২৪ তারিখে সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে। বলাবাহুল্য, একাধিক গণমাধ্যমেও সংবাদটি প্রায় একই শিরোনামে প্রকাশিত হয়েছে। বিস্তারিত অংশ থেকে জানা যাচ্ছে, ২৮ জুন ২০২৪ তারিখে এয়ার ইন্ডিয়া এক্সপ্রেসে কর্মরত বিমানবালা সুরভী খাতুন পায়ুপথে স্বর্ণ নিয়ে পাচারের অভিযোগে গ্রেফতার হয়েছেন। প্রসঙ্গত যে, যমুনা টিভি থেকে প্রকাশিত সংবাদের সাথে ভাইরাল ফটোকার্ড মেলানো হলে দেখা যায়, মূল সংবাদটি পরবর্তীতে সম্পাদনার মাধ্যমে বিকৃত করা হয়েছে। শিরোনামের স্থানে বিমানবালার পরিবর্তে ছাত্রলীগ নেত্রী তিলোত্তমা শিকদারের নাম বসানো হয়েছে। যমুনা টিভির ফটোকার্ডের আদলে আর একটি ফটোকার্ড তৈরি করা হয়েছে। যেখানে তিলোত্তমা শিকদারের ছবি ব্যবহার করা হয়েছে। আর তা দেখে প্রাথমিক অবস্থায় মনে হয়েছে এমন সংবাদ যমুনা টিভি থেকে প্রকাশিত হয়েছে।

উল্লেখ্য, ফটোকার্ডটি দ্রুত সামাজিক মাধ্যমে ভাইরাল হলে ভিক্টিম তিলোত্তমা শিকদার বিষয়টি ব্যাপারে অবগত হন। তাৎক্ষনিকভাবে ফেসবুক পোস্টের মাধ্যমে এটিকে মিথ্যা এবং অপপ্রচার চিহ্নিত করেন। এছাড়া এমন দাবির বিরুদ্ধে থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন। বিস্তারিত জানুন এখানে

Credit: rumor scanner

লক্ষণীয় যে, যমুনা টিভির ডিজাইনে যেই ফটোকার্ড ভাইরাল হয়েছে তা নিয়ে যমুনা টিভি থেকে বিজ্ঞপ্তি দেয়া হয়েছে। “যমুনা টিভির সংবাদকে বিকৃত করে ভুয়া তথ্য প্রকাশ” শিরোনামে সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে। বিস্তারিত অংশে বলা হয়েছে, “‘পায়ুপথে স্বর্ণ নিয়ে ধরা, গ্রেফতার বিমানবালা’ শিরোনামে একটি সংবাদ আজ শনিবার (১ জুলাই) যমুনা টেলিভিশনের ওয়েবসাইট এবং সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পাবলিশ হয়। এ নিয়ে একটি ফটোকার্ডও দেয়া হয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। পরে এই শিরোনামটিকে বিকৃত করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে একটি ফটোকার্ড ঘুরতে দেখা যায়। যা আসলে ভুয়া। এই ধরনের সংবাদ যমুনা টেলিভিশন পাবলিশ করেনি। সেখানে দেখা যায় বাংলাদেশের একটি ছাত্র সংগঠনের এক নেত্রীর ছবি ব্যবহার করা হয়েছে। যমুনা টেলিভিশন এর তীব্র নিন্দা জানায়”।

সুতরাং, “পায়ুপথে ১ কেজি স্বর্ণ নিয়ে ধরা ছাত্রলীগ নেত্রী” এমন দাবি ভিত্তিহীন এবং যমুনা টিভির নামে প্রচারিত ফটোকার্ডটি সম্পাদিত।

এই নিবন্ধটি ফেসবুকের ফ্যাক্ট-চেকিং প্রোগ্রামের নীতি মেনে লেখা হয়েছে।।
এর উপর ভিত্তি করে ফেসবুক যে ধরণের বিধিনিষেধ আরোপ করতে পারে, সে সম্পর্কে বিস্তারিত জানুন এখানে
এছাড়া এই নিবন্ধ সম্পর্কে আপনার মূল্যায়ন, সম্পাদনা কিংবা আরোপিত বিধিনিষেধ তুলে নেয়ার জন্য আবেদন করতে এই লিঙ্কের সাহায্য নিন।

কোনো তথ্যের সত্যতা যাচাই করতে আমাদেরকেঃ
ইমেইল করুনঃ contact@factwatch.org
অথবা ফেইসবুকে মেসেজ দিনঃ facebook.com/fwatch.bangladesh