মেট্রোরেলের বগিতে ‘শরীফ+থানিয়া’ লেখাযুক্ত ছবিটি সম্পাদিত

Published on: May 26, 2024

যা দাবি করা হচ্ছেঃ সম্প্রতি থ্রেডসে ওবায়দুল কাদেরের মেট্রোরেল ভ্রমণের একটি ছবি ছড়িয়ে পড়ছে। ওবায়দুল কাদেরের পাশে মেট্রোরেলের বগির দেয়ালে ‘শরীফ+থানিয়া’ লেখা দেখা যাচ্ছে।  দাবি করা হচ্ছে এটা বাংলাদেশের বাস টার্মিনালগুলোর মত মেট্রোরেলের বর্তমান অবস্থা।

অনুসন্ধানে যা পাওয়া যাচ্ছেঃ ছবিটি বিকৃত। ২৮ ডিসেম্বর ২০২২-এ শেখ হাসিনা মেট্রোরেলের আগারগাঁও থেকে উত্তরা অংশের উদ্বোধন করেন। এরপরে উত্তরা থেকে মেট্রোরেলে করে আগারগাঁও পৌঁছান। থ্রেডসে ছড়িয়ে পড়া ছবিটি মূলত তখনই ধারণ করা হয়েছিল। মূল ছবিতে ‘শরীফ+থানিয়া’ শীর্ষক কোনো লেখা যুক্ত ছিল না। বরং ডিজিটাল প্রযুক্তির সাহায্যে সম্পাদনা করে লেখাটি আলোচিত ছবিতে বসিয়ে দেয়া হয়েছে।

থ্রেডসে ছড়িয়ে পড়া এমন একটি পোস্ট দেখুন এখানে

ফ্যাক্টওয়াচের অনুসন্ধানঃ

থ্রেডসে  ছড়িয়ে পড়া ছবিটি সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়ার জন্য শুরুতেই এটা ব্যবহার করে রিভার্স ইমেজ অনুসন্ধান করা হয়। অনুসন্ধানে হেলাল মিয়া (Helalmiah)নামের একটি ভেরিফাইড এক্স (সাবেক টুইটার) অ্যাকাউন্ট থেকে আপলোড করা একটি পোস্টে ভাইরাল ছবিটির পূর্ব সংস্করণের একটি ছবি দেখতে পাওয়া যায়। এই পোস্টটি ২৯ ডিসেম্বর ২০২২ এ আপলোড করা হয়েছিল। মূল ছবিতে ওবায়দুল কাদেরের পাশে মেট্রোরেলের দেয়ালে ‘শরীফ+থানিয়া’ শীর্ষক কোনো লেখা খুঁজে পাওয়া যায়নি।


পরবর্তিতে, আলোচিত এই ছবিটি কবে ধারণ করা হয়েছিল এ সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়ার জন্য প্রাসঙ্গিক কিছু কি ওয়ার্ড ধরে অনুসন্ধান করা হয়। অনুসন্ধানে মূলধারার কোনো সংবাদমাধ্যম থেকে সরাসরি ছবিটি খুঁজে পাওয়া যায়নি। তবে, সময় টিভির অফিশিয়াল ইউটিউব চ্যানেলে ২৮ ডিসেম্বর ২০২২-এ প্রকাশিত আগারগাঁও থেকে উত্তরা অংশের আনুষ্ঠানিক ভাবে মেট্রোরেল চলাচল শুরু হওয়া সম্পর্কিত একটি ভিডিও খুঁজে পাওয়া যায়। সেই ভিডিও দেখে নিশ্চিত হওয়া যায় যে, ২৮ ডিসেম্বর ২০২২-এ উদ্বোধনের দিন ওবায়দুল কাদের মেট্রোরেলে ভ্রমণ করেছিলেন। এই ভিডিওতে দেখানো ওবায়দুল কাদেরের পোশাকের সাথে থ্রেডসে  ছড়িয়ে পড়া ছবিটির মিল খুঁজে পাওয়া যায়।

অর্থাৎ, আলোচিত ছবিটি ২৮ ডিসেম্বর ২০২২-এ মেট্রোরেল উদ্বোধনের দিন ধারণ করা হয়েছিল যখন সর্ব প্রথম আনুষ্ঠানিক ভাবে মেট্রোরেল যাত্রা করেছিল। তখন মেট্রোরেলের দেয়ালে ‘শরীফ+থানিয়া’ শীর্ষক কোনো লেখা  ছিলও না। তাই ফ্যাক্টওয়াচের বিবেচনায় আলোচিত ছবিটি বিকৃত।

এই নিবন্ধটি ফেসবুকের ফ্যাক্ট-চেকিং প্রোগ্রামের নীতি মেনে লেখা হয়েছে।।
এর উপর ভিত্তি করে ফেসবুক যে ধরণের বিধিনিষেধ আরোপ করতে পারে, সে সম্পর্কে বিস্তারিত জানুন এখানে
এছাড়া এই নিবন্ধ সম্পর্কে আপনার মূল্যায়ন, সম্পাদনা কিংবা আরোপিত বিধিনিষেধ তুলে নেয়ার জন্য আবেদন করতে এই লিঙ্কের সাহায্য নিন।

কোনো তথ্যের সত্যতা যাচাই করতে আমাদেরকেঃ
ইমেইল করুনঃ contact@factwatch.org
অথবা ফেইসবুকে মেসেজ দিনঃ facebook.com/fwatch.bangladesh