ছিদ্র হয়ে যাওয়া চীনের তুঝু টানেলকে বঙ্গবন্ধু টানেল বলে প্রচার

Published on: May 29, 2024      

ঘূর্ণিঝড় রেমালে ক্ষয়ক্ষতির আশংকা থাকায় গত ২৬ মে ২০২৪ (রবিবার) সন্ধ্যা ছয়টা থেকে ২৭ মে ২০২৪ (সোমবার) সকাল ছয়টা পর্যন্ত কর্ণফুলী নদীর তলদেশে নির্মিত বঙ্গবন্ধু টানেলে যানবাহন চলাচল বন্ধ করে রাখা হয়। দীর্ঘ ১৫ ঘন্টা বন্ধ থাকার পর সোমবার সকাল নয়টায় টানেলটি যানবাহন চলাচলের জন্য আবার খুলে দেয়া হয়। এর মাঝেই সামাজিক মাধ্যমে একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে যে, টানেলের দেয়াল ছিদ্র হয়ে যাওয়ায় কর্ণফুলী নদীর তলদেশে অবস্থিত বঙ্গবন্ধু টানেল বন্ধ করে রাখা হয়েছিল! তবে এরকম কোন তথ্য গণমাধ্যমে পাওয়া যায়নি। সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া ভিডিওটির উৎস অনুসন্ধান করে দেখা গেছে, এটি চীনের চংকিং (Chongqing) মিউনিসিপালিটি’র অন্তর্গত তুঝু (Tuzhu) টানেলের ভেতরে ধারণ করা হয়েছিল। ইন্টারনেট হতে প্রাপ্ত বিভিন্ন তথ্যপ্রমাণের ভিত্তিতে জানা গেছে, গত ২৬ মে ২০২৪ এ তুঝু টানেলের ভেতরের দেয়াল ছিদ্র হয়ে পানি চুইয়ে পড়ার ভিডিও এটি। সঙ্গত কারণে ফ্যাক্টওয়াচ সামাজিক মাধ্যমে শেয়ারকৃত ভিডিওটির সাথে সংশ্লিষ্ট দাবিকে “বিভ্রান্তিকর” বলে সাব্যস্ত করছে। 

 

অনুসন্ধান:

সামাজিক মাধ্যমে শেয়ারকৃত ভিডিওটির সাথে সংশ্লিষ্ট দাবিটির যথাযথতা যাচাই করতে আমরা উক্ত ভিডিও থেকে কিছু স্ক্রিনশট নিয়ে রিভার্স ইমেজ সার্চ পদ্ধতিতে অনুসন্ধান করি৷ প্রাথমিক অনুসন্ধানে ইউটিউবের ‘Fun Entertainment’ নামক একটি চ্যানেল থেকে আলোচিত ভিডিওটির আরও স্পষ্ট একটি সংস্করণ খুঁজে পাওয়া গেছে। পরবর্তীতে ঐ স্পষ্ট ভিডিও থেকে আরেকটি স্ক্রিনশট নিয়ে রিভার্স ইমেজ সার্চ করে দেখা হয় এবং ‘Orient Daily’ নামক একটি ওয়েবসাইট থেকে জানা যায়, এটি চীনের চংকিংয়ের তুঝু টানেলের ভেতর দেয়াল ছিদ্র হয়ে পানি পড়ার ভিডিও। 

এরপর আমরা আরও কয়েকটি সূত্র হতে বিষয়টির যথাযথতা যাচাই করতে গিয়ে ‘Weibo.com’ নামক ওয়েবসাইট থেকে সাত সেকেন্ডের একটি ভিডিও খুঁজে পাই, যার সাথে কর্ণফুলী টানেলের “কথিত” ভিডিওটির বেশ মিল রয়েছে। ঐ ভিডিওটির নিচে সংযুক্ত আরও দুটো লিংকে গিয়ে চীনা রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম দি হংকং কমার্শিয়াল ডেইলি, অনলাইন সংবাদমাধ্যম দি পেপার, এবং চাইনিজ ম্যাগাজিন চায়না নিউজউইক এ চীনের চংকিং মিউনিসিপালিটি’র অন্তর্গত তুঝু টানেলের ভেতর দেয়াল ছিদ্র হয়ে পানি চুইয়ে পড়ার ভিডিও খুঁজে পাওয়া যায়৷

এছাড়া, ‘Byron Wan’ নামক একটি এক্স (সাবেক টুইটার) হ্যান্ডেল হতে গত ২৬ মে ২০২৪ এ প্রকাশিত একটি ভিডিও’র ক্যাপশনেও বলা হচ্ছে, এটি চংকিংয়ের তুঝু টানেলের ভেতর দেয়াল ছিদ্র হয়ে পানি পড়ার ভিডিও।

এদিকে, ঘূর্ণিঝড় রেমালের কারণে কর্ণফুলী নদীর তলদেশে বঙ্গবন্ধু টানেলের কোন ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে কিনা সেই বিষয়ে গণমাধ্যমে কোন তথ্য পাওয়া যায়নি। তবে ঘূর্ণিঝড়ের কারণে ক্ষয়ক্ষতির আশংকা থাকতে পারে এই বিবেচনায় বঙ্গবন্ধু টানেল গত ২৬ মে ২০২৪ (রবিবার) সন্ধ্যা ছয়টা থেকে ২৭ মে ২০২৪ (সোমবার) সকাল ছয়টা পর্যন্ত বন্ধ করে রাখা হয় এবং পরবর্তীতে ২৭ তারিখ সকাল নয়টায় যানবাহন চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করে দেয়া হয়। 

বঙ্গবন্ধু টানেল ছিদ্র হয়ে যাওয়ার দাবিতে ছড়িয়ে পড়া ভিডিওগুলোর কয়েকটি নমুনা দেখবেন এখানে, এখানে, এখানে, এখানে, এখানে, এখানে, এবং এখানে

অতএব, উপরের আলোচনা থেকে স্পষ্ট বুঝা যাচ্ছে যে, সামাজিক মাধ্যমে শেয়ারকৃত ভিডিওটি কর্ণফুলী তথা বঙ্গবন্ধু টানেলের ভিডিও নয়, এবং গণমাধ্যমে বঙ্গবন্ধু টানেল ছিদ্র হয়ে যাওয়ার কোন তথ্যও নেই। 

সুতরাং, সবকিছু বিবেচনা করে ফ্যাক্টওয়াচ সামাজিক মাধ্যমে শেয়ারকৃত ভিডিওটির সাথে সংশ্লিষ্ট দাবিটিকে বিভ্রান্তিকর বলে সাব্যস্ত করছে।

এই নিবন্ধটি ফেসবুকের ফ্যাক্ট-চেকিং প্রোগ্রামের নীতি মেনে লেখা হয়েছে।।
এর উপর ভিত্তি করে ফেসবুক যে ধরণের বিধিনিষেধ আরোপ করতে পারে, সে সম্পর্কে বিস্তারিত জানুন এখানে
এছাড়া এই নিবন্ধ সম্পর্কে আপনার মূল্যায়ন, সম্পাদনা কিংবা আরোপিত বিধিনিষেধ তুলে নেয়ার জন্য আবেদন করতে এই লিঙ্কের সাহায্য নিন।

কোনো তথ্যের সত্যতা যাচাই করতে আমাদেরকেঃ
ইমেইল করুনঃ contact@factwatch.org
অথবা ফেইসবুকে মেসেজ দিনঃ facebook.com/fwatch.bangladesh